মন ও মগজ

in BDCommunity27 days ago (edited)

ইদানিং লেখালেখির মধ্যে চরম উদাসীনতা কাজ করছে। পড়া শুনাতে বরাবরই চরম ফাঁকি বাজ। তারপরেও লেখালেখি করতে ভালো লাগে। এই তো কিছুদিন আগেও লেখালেখি করতে খুব ভালোই লাগতো। এখন কি জানি কি হল।

আসলে আমাদের মন কখন কি চায় বুঝা মুশকিল। তবে আমি সব সময় মনকে প্রাধান্য দিতে চাই। মনের বিপক্ষে গিয়ে বিপ্লবী সেজে কোন লাভ নেই।

আর যদি হয় লেখালেখির বেপার তাহলে মন না চাইলে কারো বাবার সাধ্য আছে কি একটি লাইনের পর আরেকটি লাইন আবিষ্কার করতে। আমি বহুবার চেষ্টা করেছি কিন্তু প্রথম লাইনের পর দ্বিতীয় লাইন আর খুঁজে বার করতে পারি না। পারি নিই ঘন্টার পর ঘন্টা চেষ্টা করেও।

“মনের উপর কারো হাত নেই, মনের উপর জোর খাটানোর চেষ্টা করা বৃথা”
— ম্যাকডোনাল্ড

আপনি ছয় ফিট লম্বা হতে পারেন, ৫৪ ইঞ্চি ছাতিও (বুক) ও হতে পারে। কিন্তু মনের কাছে এই সবকিছুই অসহায়।

তবে মনকে নিয়ন্ত্রণ করাটা খুব জরুরী। কারণ আমাদের মন ভালো কাজের থেকে খারাপ কাজের দিকেই বেশি আকৃষ্ট হয়। নিষিদ্ধ সব কিছুই মন আমাদেরকে বেশি প্রভাবিত করে।

মন কখন কি আবদার করে বসে তা বুঝা বড় মুশকিল। আর সব আবদার পূরণ করাও সম্ভব না। আবার মনের বিপক্ষে গেলেও অনেক সময় বিপত্তি ঘটে। অনেক সময় বিপক্ষে গিয়ে অনেক অনাকাঙ্খিত ঘটনাও ঘটে যায়। তাই মনের বিপক্ষে নয় বরং মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারাটাই হচ্ছে কঠিন বিষয়। আমি নিজেও যে সব সময় নিয়ন্ত্রণ করতে পারি তা কিন্তু নয়। মাঝে মধ্যে অনেকের মত আমারও মন ও মস্তিস্কের মধ্যে তুমুল যুদ্ধ চলতে থাকে। মনের আবদার পূরণ করতে গিয়ে অনেক সময় অনেক কিছুই করে ফেলি কিন্তু যা আসলে করা উচিত নয়।

২০১৪ সালের "মন ও মগজ" কবিতাটি ফেসবুকে পড়েছিলাম। আজ হঠাৎ আবার চোখে পরলো তাই মন ও মগজ নিয়ে লেখা। কবিতাটি হুবহু তুলে ধরলাম।

মন ও মগজ
........মোহাম্মদ ফয়েজ আহমেদ

মগজ ডেকে বলছে, “ও মন, তুমি করছ কি?”
মন জবাব দেয়, “যা খুশি আমার, তোমার কি?”

মগজ বলে, “তুমি তা পার না, আছে জবাবদিহিতা”
মন ধমকায়, “কিসের জবাব? আমি নবাব দুহিতা!”

মগজ বলে, “আফসোস! তুমি করছ নিজের ধ্বংস”
মন বলে, “চুপ রও! যত ভীরু-কাপুরুষের বংশ”

মগজ জিজ্ঞাসে, “ও মন, তুমি ভুলেছ তোমার প্রভু কে?”
মন শুধায়, “ভ্রষ্ট মগজ! দেখেছ তাঁকে কভু রে?”

মগজ বলে, “ও মন, করছ ভুলের মধ্যে বসবাস”
মন বলে, “সুখে আছি বন্ধু, করো না মোর সর্বনাশ!”

মগজ বলে, “দোহাই ও মন, আমায় একটু ভাবতে দাও”
মন বলে, “তোমার কাজ তুমি করো, আমায় একা থাকতে দাও”

মগজ বলে, ”চলো বন্ধু করি প্রভুর প্রার্থনা”
মন বলে, “অদৃশ্যলোকে চাইলে কোন স্বার্থ না!”

মগজ বলে, “এখন ক্ষীণ, আসছে সামনে সীমাহীন”
মন বলে, “রাতে ঘুমাবো, আনন্দ করবো সারাদিন!”

মগজ বলে, “সীমাবদ্ধতা আছে তোমার ধর্মে”
মন বলে, “ধর্মে নয়, বিশ্বাসী আমি কর্মে”

মগজ বলে, “ন্যায় আছে, অন্যায় আছে, আছে পূণ্য-পাপ”
মন বলে, ”আগুন আছে, পানি আছে, আছে ঠান্ডা-তাপ”

মগজ বলে, ”বউ আছে, বাচ্চা আছে, করছ পরকীয়!”
মন বলে, “আমিতো নর, করবো আরও তিনটি বিয়া”

মগজ বলে, “নর তুমি, নারী হলে করতে কি?”
মন বলে, “পৃথিবীর বুকে রয়েছে সংসার বহুপতি!”

মগজ বলে, “ভুল-ভ্রান্তি ভাবার দায়িত্বে আমি”
মন বলে, “আমি ভৃত্য নয়, তুমি নও মোর স্বামী”

মগজ বলে, “ও মন, তুমি আসলে ক্যামনে ভবে?”
থমকে গিয়ে বলছে মন, “একটু ভাবতে হবে!”

মগজ বলে, “ভাবনার কাজ তোমার নয়তো ভাই”
মন করে দু’হাত জোড় - বলে, “ক্ষমা চাই।”

images 19.jpeg

source